بِسْمِ اللهِ الرَّحْمنِ الرَّحِيمِ
শুরু করছি আল্লাহর নামে যিনি পরম করুণাময়, অতি দয়ালু

لَا أُقْسِمُ بِهَذَا الْبَلَدِ
আমি এই নগরীর শপথ করি(সূরা বা’লাদ ৯০:১ )

وَأَنتَ حِلٌّ بِهَذَا الْبَلَدِ
এবং এই নগরীতে আপনার উপর কোন প্রতিবন্ধকতা নেই।(সূরা বা’লাদ ৯০:২ )

আরোঃ বাংলা উচ্চারণ সহ

وَوَالِدٍ وَمَا وَلَدَ
শপথ জনকের ও যা জন্ম দেয়।(সূরা বা’লাদ ৯০:৩ )

لَقَدْ خَلَقْنَا الْإِنسَانَ فِي كَبَدٍ
নিশ্চয় আমি মানুষকে শ্রমনির্ভররূপে সৃষ্টি করেছি।(সূরা বা’লাদ ৯০:৪ )

أَيَحْسَبُ أَن لَّن يَقْدِرَ عَلَيْهِ أَحَدٌ
সে কি মনে করে যে, তার উপর কেউ ক্ষমতাবান হবে না ?(সূরা বা’লাদ ৯০:৫ )

يَقُولُ أَهْلَكْتُ مَالًا لُّبَدًا
সে বলেঃ আমি প্রচুর ধন-সম্পদ ব্যয় করেছি।(সূরা বা’লাদ ৯০:৬ )

أَيَحْسَبُ أَن لَّمْ يَرَهُ أَحَدٌ
সে কি মনে করে যে, তাকে কেউ দেখেনি?(সূরা বা’লাদ ৯০:৭ )

أَلَمْ نَجْعَل لَّهُ عَيْنَيْنِ
আমি কি তাকে দেইনি চক্ষুদ্বয়,(সূরা বা’লাদ ৯০:৮ )

وَلِسَانًا وَشَفَتَيْنِ
জিহবা ও ওষ্ঠদ্বয় ?(সূরা বা’লাদ ৯০:৯ )

وَهَدَيْنَاهُ النَّجْدَيْنِ
বস্তুতঃ আমি তাকে দু’টি পথ প্রদর্শন করেছি।(সূরা বা’লাদ ৯০:১০ )

فَلَا اقْتَحَمَ الْعَقَبَةَ
অতঃপর সে ধর্মের ঘাঁটিতে প্রবেশ করেনি।(সূরা বা’লাদ ৯০:১১ )

وَمَا أَدْرَاكَ مَا الْعَقَبَةُ
আপনি জানেন, সে ঘাঁটি কি?(সূরা বা’লাদ ৯০:১২ )

فَكُّ رَقَبَةٍ
তা হচ্ছে দাসমুক্তি(সূরা বা’লাদ ৯০:১৩ )

أَوْ إِطْعَامٌ فِي يَوْمٍ ذِي مَسْغَبَةٍ
অথবা দুর্ভিক্ষের দিনে অন্নদান।(সূরা বা’লাদ ৯০:১৪ )

يَتِيمًا ذَا مَقْرَبَةٍ
এতীম আত্বীয়কে(সূরা বা’লাদ ৯০:১৫ )

أَوْ مِسْكِينًا ذَا مَتْرَبَةٍ
অথবা ধুলি-ধুসরিত মিসকীনকে(সূরা বা’লাদ ৯০:১৬ )

ثُمَّ كَانَ مِنَ الَّذِينَ آمَنُوا وَتَوَاصَوْا بِالصَّبْرِ وَتَوَاصَوْا بِالْمَرْحَمَةِ
অতঃপর তাদের অন্তর্ভুক্ত হওয়া, যারা ঈমান আনে এবং পরস্পরকে উপদেশ দেয় সবরের ও উপদেশ দেয় দয়ার।(সূরা বা’লাদ ৯০:১৭ )

أُوْلَئِكَ أَصْحَابُ الْمَيْمَنَةِ
তারাই সৌভাগ্যশালী।(সূরা বা’লাদ ৯০:১৮ )

وَالَّذِينَ كَفَرُوا بِآيَاتِنَا هُمْ أَصْحَابُ الْمَشْأَمَةِ
আর যারা আমার আয়াতসমূহ অস্বীকার করে তারাই হতভাগা।(সূরা বা’লাদ ৯০:১৯ )

عَلَيْهِمْ نَارٌ مُّؤْصَدَةٌ
তারা অগ্নিপরিবেষ্টিত অবস্থায় বন্দী থাকবে।(সূরা বা’লাদ ৯০:২০ )