প্রাকৃতিকভাবেই হয়তো আপনার ত্বক সুস্থ ও স্বাভাবিক। হঠাৎ একদিন ঘুম থেকে উঠে দেখলেন, মুখে ছোট একটা কালো দাগ। সাধারণত রোদে পুড়ে গেলে বা নিজের অজান্তে ছোট ছোট র‍্যাশে নখ লাগানোর কারণে মুখে এমন দাগ দেখা যায়। ধীরে ধীরে তা মিলিয়েও যায় বটে। কিন্তু সে সময় যদি কোনো অনুষ্ঠানে যেতে হয়, তখন তো একটু ভাবনায় পড়তেই হয়। তবে এ সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যেতে পারে ঘরে থাকা জিনিসের ব্যবহারে। কীভাবে? চলুন, দেখে নিই সে উপায়।

মধু একটি প্রাকৃতিক উপাদান এটি ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ায় ও ত্বক নরম রাখে, বলিরেখা ও কালচে দাগ দূর করতে মধুর অতুলনীয়, এছাড়া ব্রণের দাগ ও ব্রণের জীবাণু ধ্বংস করতে মধু বেশ কার্যকর। খুব কম সময়ে ও উজ্জ্বল ত্বক পেতে চাইলে মধুর কোন বিকল্প নেই। আসুন জেনে নেই ত্বকের যত্নে কিভাবে মধু ব্যবহার করবেন।

১. ) মধু ও লেবুর রসের মিশ্রণ) ১ চা চামচ মধুর সঙ্গে ১ চা চামচ লেবুর রস মিশিয়ে ২০ মিনিট মুখে ম্যাসাজ করুন। এরপর ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন এবং হালকা গরম পানি দিয়ে ত্বক ধুয়ে ফেলুন ! তাহলে আপনি খেয়াল করবেন আপনার ত্বক এক নিমিষেই উজ্জ্বলতা লাভ করেছে।

Google News

২.) মধু ও টক দই এর প্যাক) ১ টেবিল চামচ মধুর সঙ্গে ১ টেবিল চামচ টক দই মিশিয়ে মুখে লাগান, ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর হালকা গরম পানি দিয়ে ত্বক ধুয়ে ফেলুন , এটি তৈলাক্ত ত্বকের জন্য বেশ কার্যকর, এছাড়া ত্বকের ব্রণ ও ব্রণের দাগ দূর করতে প্যাকটি অনেক কার্যকর।

৩.)মধু ও কলার প্যাক)

১ টেবিল চামচ মধুর সঙ্গে সামান্য কলা চটকে নিয়ে প্যাক তৈরি করুন, ২০ মিনিট ম্যাসাজ করুন ত্বকে, এরপর হালকা গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এটি ত্বকের কালচে ভাব দূর করে ত্বকের উজ্জ্বলতা দ্রুত ফিরিয়ে আনে।

৪.) মধু, গোলাপজল ও হলুদ গুঁড়ার প্যাক) ১ টেবিল চামচ মধু কয়েক ফোটা গোলাপ জল , ও সামান্য হলুদ গুঁড়ো একসঙ্গে মিশিয়ে মুখে লাগান, ১০ মিনিট পর মুখ ধুয়ে ফেলুন। এটি ত্বককে এক নিমিষেই উজ্জ্বল করে তুলবে, বাইরে যাওয়ার আগে বা কোন অনুষ্ঠানে যাওয়ার আগে প্যাকটি ব্যবহার করবেন, অবশ্যই দ্রুত ফল পাবেন।

মুখের কালো দাগ দূর করতে মধু যে কতটা উপকারী তা নিশ্চয়ই এতক্ষণে বুঝে গিয়েছেন? তো পাঠক-কেমন লাগলো আজকের প্রতিবেদন সেটি কমেন্ট সেকশনে জানাতে পারেন। যদি ভালো লাগে তাহলে বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করতে পারেন আজকের মত এখানেই শেষ করছি ,ধন্যবাদ।

আরো দেখুন: